উবারে করে গরু নিয়ে গিনিসবুকে নাম লেখালেন এক ক্রেতা!

উবারে করে গরু নিয়ে গিনিসবুকে নাম লেখালেন এক ক্রেতা!



জনপ্রিয় রাইড শেয়ারিং এপ উবার।জনপ্রিয় এই এপ এতোদিন মানুষ বহন করলেও ইদানীং তা শুরু করেছে গরু বহন।

এমনি এক অবাক কান্ড ঘটেছে ঢাকার গাবতলী পশুর হাটে।গরু নেওয়ার জন্যে সেখানে ব্যবহার করা হয়েছে উবার। ঘটনাটি ঘটেছে রাজধানী ঢাকায়।

ব্যস্ততা আর যানজটের এই শহরে অনেকেই দিনের বেলায় হাট যেতে চান না। বেছে নেন রাত। ঢুঁ মারছেন বিভিন্ন হাটে। দাম পরখ করে দেখছেন। তাঁদের কয়েকজন বলেন, রাতে যানজট থাকে না খুব একটা। হাটেও ভিড় কম থাকে। সময় নিয়ে বেছে কোরবানির জন্য পছন্দের পশু কেনার সুযোগ থাকে।

গতকাল বুধবার রাতে ঝিরঝির বৃষ্টি ছিল। এর মধ্যে বংশালের সামসাবাদ মাঠ, ধোলাইখালের কাউয়ারটেক মাঠ এবং ধূপখোলা মাঠসংলগ্ন হাট ঘুরে দেখা যায়, অধিকাংশ ক্রেতাই দাম যাচাই করে দেখছেন। কেউ কেউ পরিবার বা বন্ধুদের নিয়ে এসেছেন।



মোটরসাইকেলে করে পরিবার নিয়ে রাত একটায় সামসাবাদ মাঠসংলগ্ন হাটে এসেছেন সামসুদ্দীন আহমেদ। এ সময় হাট অনেকটা ফাঁকা থাকায় মোটরবাইকে করেই ধীরগতিতে হাট ঘুরে দেখছিলেন তিনি। মাঝেমধ্যে মোটরবাইক থামিয়ে চার বছরের ছেলে মাসুদ রানাকে গরুর কাছে নিয়ে যাচ্ছেন। শিশুটি গরুর গায়ে হাত বুলিয়ে দিচ্ছে। আর মা সে ছবি মুঠোফোনে ধারণ করে রাখছেন।

এই সময় একটি গরু পছন্দ হয়ে যায় তাদের। দাম ও সময় সব কিছু মিলিয়ে টাইমিং মিলে গেলে গরুটি কিনে ফেলেন তারা।

কিন্তু গরু বাসায় নিয়ে যাওয়া নিয়ে বাধে ভয়াবহ সমস্যা। উপায়ন্তর না পেয়ে উবার ঢেকে বসেন। উবার চালক প্রথম গাড়িতে গরু নিয়ে উঠতে গাইঘুই করেন। পরে এক্সট্রা টিপসের লোভ দেখিয়ে তাকে রাজী করান সামসুদ্দীন আহমেদ। তিনি উবারে করে গরুটি ঠিকমতো বাসায় নিয়ে যান।

এদিকে এই ঘটনার পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে ছবি।গরু উঠানোর পক্ষ্যে বিপক্ষ্যে কথা বলেছেন নানান মানুষ।

এই ঘটনায় উবার কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা রং নম্বর বলে ফোন কেটে দেন।


fahad

ট্রল করতে করতে যিনি মানুষ থেকে এখন পরিপূর্ণ ট্রলার!

You may also like...