BRTC(বিআরটিসি)’র এসি বাসে পাদের গন্ধে ১০ জন অজ্ঞান!

BRTC(বিআরটিসি)’র এসি বাসে পাদের গন্ধে ১০ জন অজ্ঞান!


এসি বাসে উঠতে কে না চায়? এই গরমে ভাড়া একটু বেশী দিয়ে হলে যাত্রীরা এসি বাসে উঠে নিজ গন্তব্যে যেতে চায়। যাত্রীদের বহু দিনের দাবী কে মাথায় রেখে সরকার ঢাকা-সাভার রুটে চক্রাকারে চালু করে এসি বাস সার্ভিস।

গত ৩ মে সাভার-ঢাকা রুটে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত (এসি) ‘লাল সবুজ’ বাস সার্ভিস চালু হয়েছে।

 

৩ মে শুক্রবার দুপুরে হেমায়েতপুর মোল্লা ফিলিং স্টেশনের সামনে এই নতুন সার্ভিসের উদ্বোধন করা হয়। সাভার রেডিও কলোনি থেকে ঢাকার মতিঝিল রুট পর্যন্ত চলাচল করবে যাত্রীবাহী এই বাস। ব্যস্ততম এই সড়কে চলাচলরত যাত্রীদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল এসি বাস সার্ভিস।

 

ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে সাভার-টেকনিক্যাল ৫০ টাকা, সাভার-কারওয়ান বাজার ১০০ টাকা, সাভার-মতিঝিল ১৫০ টাকা। সাভার রেডিও কলোনি, বাজার বাসস্ট্যান্ড, হেমায়েতপুরে এর কাউন্টার চালু হয়েছে।



কিন্তু এই বাস সার্ভিস চালু করার পর শুরু হয় যত সব সমস্যা। এসি বাসের কন্ড্যাক্টর হেমায়েত মিয়া আমাদের নিজস্ব সংবাদদাতাকে জানান, আর বইলেন না এদের জ্বালায় আর থাকতে পাইতাছি না। এসি ১৬ তে রাখসি, আর এরা কয় এসি ঠান্ডা হয় না। খালি বলে ওই কন্ডাকটর আরেকটু কমা। এসির বাতাস কই?

আচ্ছা বলেন ভাই বাতাস কি বাড়িতে নিয়া আসমু? আমাগোর সাথে চিল্লাইলে কি অইবো

এদিকে সোমবারে ঘটে যায় আরেক ঘটনা এসি বাসের ভেতরে ১০ জন যাত্রী অজ্ঞান হয়ে পড়ে। অবস্থা গুরুতর দেখে বাস থামিয়ে তাদের ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করা হয়। প্রথমে ধারনা করা হয় তীব্র গরমে তারা অজ্ঞান হয়ে যায়। কিন্তু এদের একজনের জ্ঞান ফিরলে তিনি জানান, বাসে পাদের বিকট গন্ধেই তারা জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন।

এদিকে এই ঘটনার পর থেকে বাস চালক পলাতক। যাত্রীরা বলছে পাদটি বাস চালক মেরেছেন। কিন্তু বাসের কন্ডাকটর পাদের বিষয়টি গুজব বলে উড়িয়ে দিয়ে জানান, আমার ওস্তাদ গ্যারামের বাড়িতে গেছে তিনি এই পাদ দেন নাই।


Bengali Sarcasm Desk

এই ডেস্কে কখন কে বসে তার কোন ঠিক ঠিকানা নেই!

You may also like...